মোবাইল আসক্তি রোধে ৫ পরামর্শ

Udvash July 8, 2020

আমাদের দেশের অধিকাংশ শিক্ষার্থী মোবাইল আসক্তির কটুচক্রে আবদ্ধ হয়ে বেমালুম ভুলে যায় নিজের ভবিষ্যত জীবনের সোনলী স্বপ্নের কথা।ফেইসবুক, ইনস্ট্রাগ্রাম,ইউটিউব কিংবা টুইটারের করাল চক্রে তারা আটকে ফেলে সুন্দর জীবনের খেই।তারা এ আসুক্তির মোহ ভাঙ্গার পথ খুঁজে পায়না, হারিয়ে পেলে জীবনের স্বাভাবিক ছন্দ।তাহলে করণীয় কি? কিভাবে মোবাইলের এমন আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে? ভড়কে যাবার কিছু নেই, তোমাদের জন্যই এই লেখাটি।অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, কিছু সহজ ও ছোট ছোট কৌশল অবলম্বন করলেই মোবাইল আসক্তির এই কঠিন গোলক ধাঁধা ভাঙ্গতে পারবে তুমিও।তাহলে দেরি না করে এক নজরে দেখে নিতে পারো কৌশলগুলো-

০১. নোটিফিকেশন অফ রাখা:
এই কৌশলটি হলো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার নোটিফিকেশন বন্ধ রাখা।সোশ্যাল মিডিয়ার নোটিফিকেশন বন্ধ না থাকলে ফেইসবুক, ইউটিউব, ইন্স্ট্রাগ্রাম,টুইটার কিংবা বিভিন্ন সাইটের নোটিফিকেশন আসতে থাকে ক্রামাগত।যার ফলে আমরা ক্ষণিক পর পরেই নোটিফিকেশন চেক করার অযুহাতে এসব সাইটগুলোতে ঘন্টার পরে ঘন্টা ব্যয় করতে থাকি।আর রোজকার এমন কান্ডে অবচেতন মনেই আমরা মোবাইল আসক্তির শিকার হই।তাই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার নোটিফিকেশন অফ রাখা হতে পারে মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার সুন্দর একটি কৌশল।

০২. নির্দষ্ট সময়ে মোবাইল ব্যবহার করা:
যতবেশি মোবাইল ব্যবহার করবে; তত বেশি মোবাইলে আসক্ত হবে।তাই,সবসময় মোবাইল ব্যবহার না করে দিন কিংবা রাতের নির্দিষ্ট সময় মোবাইল ব্যবহার করতে পারো।পারলে একটা রুটিন করে নিতে পারো, কেবল রুটিনের সময়েই মোবাইল ব্যবহার করবে এর বাহিরে নয়। মোবাইল আসক্তি রাধে এটি দারুণ কার্যকরী কৌশল।

০৩. মোবাইল বন্ধ রাখা:
মোবাইল আসক্তি রোধে এটি তোমার জন্য হতে পারে সবচেয়ে সহজ এবং সুন্দর পদ্ধতি।তুমি যখন পড়তে বসবে, ঘুমাতে যাবে কিংবা গুরুত্বপূর্ণ আলাপচারিতায় ব্যস্ত থাকবে তখন মোবাইল বন্ধ রাখতে পারো।এতে তুমি যেমন পড়াতে একাগ্রতা ঠিক রাখতে পারবে, ঘুমাতে পূর্ণ স্বাদ পাবে তেমনি আলাপচারিতায় পাবে প্রফুল্লতা।আর এ সময়গুলোতে মোবাইল ব্যবহার হতে বিরত থাকার ফলে তুমি ক্রমশই মোবাইল আসক্তি থেকে বেরিয়ে আসতে পারবে সহজে।

০৪. ব্যবহার করো দীর্ঘ এবং শক্ত পাসওয়ার্ডঃ
মোবাইলে দীর্ঘ এবং শক্ত পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে পারো, যা হতে পারে ১৫ কিংবা তার অধিক ক্যারেক্টারের। যার ফলে তুমি চাইলেই এক ক্লিকে ফেইসবুক কিংবা বিভিন্ন সাইটে ঢু মারতে পারবেনা।তার আগে এই দীর্ঘ এবং শক্ত পাসওয়ার্ড খোলার ঝামেলা পোহাতে হবে তোমাকে। মোবাইল আসুক্তি রোধে তোমার জন্য এটি হতে পারে চমৎকার একটি কৌশল।

০৫.বন্ধ রাখো গ্রুপ চ্যাট:
ফেইসবুকে কলেজ বন্ধুদের গ্রুপ চ্যাট, পাড়ার বন্ধু-বান্ধবের গ্রুপ চ্যাট কিংবা ফ্যামিলি মেম্বারদের গ্রুপ চ্যাট। যেনো ফেইসবুকে একবার ঢুকলে গ্রুপ চ্যাটের আড্ডা থেকে বের হওয়ার সুযোগ নেই।গ্রুপ চ্যাটে হররোজ এমন আড্ডাই একসময় পরিণত হয় আসক্তিতে। তাই মোবাইল আসক্তি রোধে অতিরিক্ত অপ্রয়োজনীয় গ্রুপ চ্যাটগুলো বন্ধ রাখাই শ্রেয়।

Related Articles

What Peopleare saying

Avatar

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *